বৃহস্পতিবার, ০৬ অগাস্ট ২০২০, ০৬:২৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম
নগরকান্দা পৌর যুবলীগের সাবেক সভাপতি কামরুজ্জামান (মিঠু)এর উদ্যোগে বাঁশের সাঁকো নির্মাণ নগরকান্দা পৌর যুবলীগের সাবেক সভাপতি কামরুজ্জামান (মিঠু)এর উদ্যোগে বাঁশের সাঁকো নির্মাণ নগরকান্দায় মুক্তিযোদ্ধার উপর হামলার অভিযোগ নগরকান্দা-সালথাবাসী’কে পবিত্র ঈদ-উল- আজহার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন : সাবেক এমপি জুয়েল চৌধুরী পবিত্র ঈদ-উল-আযহা উপলক্ষে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন রিয়া-রা‌থিন গ্রু‌পের কর্ণধর কাজী আব্দুস সোবহান নগরকান্দায় সংসদ উপনেতা সৈয়দা সাজেদা চৌধুরীর পক্ষে বন্যার্তদের মাঝে ত্রান বিতরন সালথায় সাংবা‌দিক নেতা আছাদুজ্জামানকে সংবর্ধণা নগরকান্দায় সাংবাদিক নেতা আসাদুজ্জামানের মতবিনিময় সভা নগরকান্দা’বাসীকে ঈদুল আযহা’র অগ্রিম শুভেচ্ছা জানিয়েছেন মোঃ কামাল হোসেন মিয়া নগরকান্দার চরযোশর্দী ইউনিয়নের একজন সফল ও জনপ্রিয় চেয়ারম্যান আরিফুর রহমান পথিক

কিশোরগঞ্জ জেলার ঐতিহাসিক শোলাকিয়ায় জঙ্গি হামলার ৪ বছর আজ

ডেস্ক রিপোর্ট / ৮৩ বার পঠিত
প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ৭ জুলাই, ২০২০

 

কিশোরগঞ্জ জেলার ঐতিহাসিক শোলাকিয়ায় ঈদের দিনে জঙ্গি হামলার চার বছর আজ ৭ জুলাই। ২০১৬ সালের এ দিনে জঙ্গিরা ঈদগাহ মাঠের অদূরেই চেকপোস্টে বাধাপ্রাপ্ত হয়ে পুলিশের ওপর গ্রেনেড হামলা চালায়। এ জঙ্গি হামলায় দুই পুলিশ সদস্য জীবন দিয়ে প্রতিহত করেন। এছাড়া জঙ্গি হামলায় নিহত হন গৃহবধূ ঝর্ণা রানী ভৌমিক। আহত হন আরো আট পুলিশ সদস্য। চাঞ্চল্যকর এ মামলায় পাঁচজনকে আসামি করে পৌনে দুই বছর আগে অভিযোগপত্র আদালতে দাখিল হলেও এখনো সাক্ষ্য শুরু হয়নি। নিহত ঝর্ণা রানীর স্বজন ও এলাকাবাসী দ্রুত এ ঘটনায় জড়িতদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি জানিয়েছেন।
২০১৬ সালে ঈদুল ফিতরের দিন ঐতিহাসিক শোলাকিয়া ঈদগাহের অদূরেই আজিমউদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ের কাছে জঙ্গি হামলার ঘটনা ঘটে। এ হামলায় জহিরুল ইসলাম ও আনছারুল হক নামে দুজন পুলিশ কনস্টেবল, স্থানীয় গৃহবধূ ঝর্ণা রানী ভৌমিক ও আবির রহমান নামে এক জঙ্গি নিহত হন। আহত হন আরো আট পুলিশ সদস্য। পুলিশের গুলিতে আহত আরেক জঙ্গি শফিকুল ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ থেকে চিকিৎসা শেষে কিশোরগঞ্জে আসার পথে নান্দাইলে র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছে।

চাঞ্চল্যকর এ মামলাটির অভিযোগপত্র ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বরে আদালতে দাখিল করেছে পুলিশ। অভিযোগপত্রে মোট ২৪ জন আসামির নাম উল্লেখ করা হলেও ১৯ জন আসামি দেশের বিভিন্ন স্থানে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছে এবং বাকি ৫ আসামি কারাগারে রয়েছে।

কারাগারে আটক পাঁচ আসামি হলো কিশোরগঞ্জের জাহিদুল হক তানিম, চাঁপাইনবাবগঞ্জের মিজানুর রহমান ওরফে বড় মিজান, কুষ্টিয়ার আবদুস সবুর খান ওরফে সোহেল মাহফুজ, গাইবান্দার জাহাঙ্গীর আলম ওরফে রাজীব গান্ধী ও আনোয়ার হোসেন। অভিযোগপত্রে মামলার সাক্ষী হিসেবে ৭৩ জনের নাম উল্লেখ করা হয়। আসামিদের মধ্যে কেউ কেউ শোলাকিয়ায় জঙ্গি হামলায় জড়িত থাকার ব্যাপারে স্বীকারোক্তিও দিয়েছে।
নিহত ঝর্ণা রানীর স্বামী গৌরাঙ্গ নাথ ভৌমিক জানান, তিনি এখনো স্ত্রী হারানোর কষ্ট নিয়ে বেঁচে আছেন। এমন যেন আর কোনো স্বামীর ভাগ্যে না ঘটে। নিহত ঝরণা রানীর ছোট ছেলে শুভ নাথ ভৌমিক জানান, মায়ের কষ্ট তাকে তাড়িয়ে বেড়ায়।

কিশোরগঞ্জ জজ কোর্টের পাবলিক প্রসিকিউটর এডভোকেট শাহ আজিজুল হক বলেন, করোনার কারণে মামলাটির কার্যক্রম আপাতত স্থগিত রয়েছে। করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে চাঞ্চল্যকর এ মামলাটির সাক্ষী-প্রমাণ হাজির করা হবে। সরকারের পক্ষ থেকে এ মামলার আসামিদের মৃত্যুদণ্ড নিশ্চিত করতে চেষ্টা করা হবে বলে তিনি জানান।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর
এক ক্লিকে বিভাগের খবর